নারী ইসলামী শরিয়ত অনুযায়ী বেগানা নারী (আরবীতে যাকে বলে গায়রে মাহরাম) হচ্ছে, যাদেরকে বিবাহ করা বৈধ।

“বেগানা নারী” বলতে সাধারণত এমন একজন নারীকে বোঝায় যে:

১) পুরুষের অন্যতম স্ত্রী:

ইসলামী শরিয়তে একজন পুরুষের একসাথে সর্বোচ্চ চারজন স্ত্রী থাকতে পারে।

২) রক্ত সম্পর্কের বাইরে:

একজন পুরুষের জন্য, তার স্ত্রী, মা, মেয়ে, বোন, ঠাকুমা, নাতনি, ফুফু, খালা, মামী, শাশুড়ি, ঝি, দুধভাই-বোন, এবং স্ত্রীর মায়ের বোন (খালাতো বোন) সহ রক্ত সম্পর্কের বাইরে থাকা সকল নারী “বেগানা” হিসেবে বিবেচিত।

৩) পর্দা করার প্রয়োজন:

ইসলামী শরিয়ত অনুসারে, একজন পুরুষের জন্য তার “বেগানা” নারীদের সামনে পর্দা করা ওয়াজিব।

৪) নির্জনে অবস্থান না করা:

ইসলামী শরিয়ত অনুসারে, একজন পুরুষের জন্য তার “বেগানা” নারীর সাথে নির্জনে অবস্থান করা নিষিদ্ধ।

৫) কথোপকথন:

ইসলামী শরিয়ত অনুসারে, একজন পুরুষের জন্য তার “বেগানা” নারীর সাথে অপ্রয়োজনীয় কথোপকথন করা অনুচিত।

উল্লেখ্য:

  • “বেগানা” শব্দটির অর্থ সমাজ ও সংস্কৃতি ভেদে ভিন্ন হতে পারে।
  • উপরোক্ত ব্যাখ্যাটি ইসলামী শরিয়তের আলোকে প্রদান করা হয়েছে।
  • আপনার যদি “বেগানা” নারী সম্পর্কে আরও প্রশ্ন থাকে, তাহলে একজন আলেমের সাথে পরামর্শ করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।