নতুন ই-পাসপোর্টের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য:

  • জাতীয় পরিচয়পত্র (NID): মূল কপি এবং ফটোকপি উভয়ই।
  • জন্ম নিবন্ধন সনদ (BRC): অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদের (BRC English Version) প্রিন্টেড কপি।
  • পাসপোর্ট ফি পরিশোধের রশিদ: ব্যাংক থেকে মূল রশিদ।
  • নাগরিক সনদ/চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট: মূল কপি এবং ফটোকপি উভয়ই।
  • পেশা প্রমাণের কাগজপত্র (যদি থাকে):
    • সরকারি চাকরিজীবী: सेवा সনদপত্রের ফটোকপি।
    • বেসরকারি চাকরিজীবী: কর্মস্থানের সার্টিফিকেট।
    • ব্যবসায়ী: ট্রেড লাইসেন্সের ফটোকপি।
    • শিক্ষার্থী: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সার্টিফিকেট।
    • গৃহিণী: স্বামীর NID কপি।
  • অতিরিক্ত কাগজপত্র (যদি প্রযোজ্য হয়):
    • পূর্ববর্তী পাসপোর্ট থাকলে: মূল পাসপোর্ট এবং ফটোকপি উভয়ই।
    • নাম পরিবর্তন থাকলে: গেজেট নোটিশের ফটোকপি।
    • ধর্ম পরিবর্তন থাকলে: ধর্ম পরিবর্তন সনদের ফটোকপি।

১৮ বছরের কম বয়সী শিশুদের জন্য:

  • জন্ম নিবন্ধন সনদ (BRC): অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদের (BRC English Version) প্রিন্টেড কপি।
  • পাসপোর্ট ফি পরিশোধের রশিদ: ব্যাংক থেকে মূল রশিদ।
  • অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পত্র (NID): মূল কপি এবং ফটোকপি উভয়ই।
  • অভিভাবকের পাসপোর্ট: মূল পাসপোর্ট এবং ফটোকপি উভয়ই (যদি থাকে)।
  • শিশুর ছবি: সাদা ব্যাকগ্রাউন্ডে 2 কপি স্পষ্ট পাসপোর্ট আকারের ছবি।
  • অতিরিক্ত কাগজপত্র (যদি প্রযোজ্য হয়):
    • যদি একজন অভিভাবক অনুপস্থিত থাকেন: অনুপস্থিত অভিভাবকের NID কপি, মৃত্যু সনদ (যদি প্রযোজ্য হয়) এবং অভিভাবকত্বের দায়িত্ব প্রদানকারী আদালতের নির্দেশের ফটোকপি।
    • দত্তক নেওয়া শিশু: দত্তকগ্রহণের সনদের ফটোকপি।

গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশাবলী:

  • সকল কাগজপত্র অবশ্যই সত্যায়িত এবং বর্তমান হতে হবে।
  • ফটোকপিগুলো A4 আকারের কাগজে হতে হবে এবং স্পষ্ট ও পরিষ্কার হতে হবে।
  • অনলাইনে আবেদন করার পর, প্রিন্ট করা আবেদনপত্র সাবমিট করার সময় সকল