ফাইজান নামের অর্থ কি? এটি কি সত্যিই ইসলামিক নাম?

ফাইজান নামের অর্থ কি এবং ফাইজান নামের ইসলামিক অর্থ কি সংক্রান্ত উত্তর পাবেন আজকের এই লিখায়। আজকে আপনাদের সামনে চলে এলাম Faizan Namer Ortho ki পোষ্ট নিয়ে।

ফাইজান নামের বাংলা আরবি ইসলামিক অর্থ কি | Faizan name meaning in bengFaizan arabic and Islamic

আজ মানে কি ব্লগের এই লিখাটি পড়লে আপনি যে কেবল ফাইজান নামের অর্থ কি‘ই জানতে পারবেন তা নয়। ফাইজান কি ইসলামিক নাম, ফাইজান নামের ইসলামিক অর্থ কি, ফাইজান নাম দিয়ে পুরো নামের সাজেশন, ফাইজান নামের বিখ্যাত ব্যক্তি ও বিষয় সম্পর্কেও পূর্নাঙ্গ ধারণা পাবেন।

ফাইজান কি ইসলামিক নাম?

ফাইজান ইসলামিক পরিভাষার একটি নাম। ফাইজান (Faizan) হলো একটি আরবি শব্দ। ফাইজান নামটি সুন্দর একটি ইসলামিক নাম।

ফাইজান নামের অর্থ কি? Faizan Namer ortho ki

ফাইজান (Faizan) নামের প্রকৃত অর্থ অনুগ্রহ। এছাড়াও ফাইজান নামের অন্যান্য অর্থের মধ্যে রয়েছে সুবিধা।

ফাইজান নামের ইসলামিক অর্থ?

ফাইজান (Faizan) নামটি আরবি শব্দ। ফাইজান (Faizan) নামের আরবি অর্থ অনুগ্রহ। ফাইজান (Faizan) নামের অন্যান্য অর্থ সুবিধা।

ফাইজান (Faizan)কোন লিঙ্গে নামে?

ফাইজান (Faizan) নামটি সাধারণত মেয়েদের নাম রাখার ক্ষেত্রে উপযােগী নয়। সাধারণত ফাইজান (Faizan) নামটি ছেলেদের ক্ষেত্রে রাখা হয়।

ফাইজান (Faizan) শব্দের ইংরেজি বানান

ফাইজান নামের ইংরেজি বানান ,Faizan .

ফাইজান নামটি কেন জনপ্রিয় ?

ফাইজান নামটি ,ইসলামিক আধুনিক,কমন মর্ডান ও সুন্দর অর্থ সম্পন্ন একটি নাম

ফাইজান (Faizan) শব্দ দিয়ে কিছু নাম

প্রিয় পাঠক, আপনার যদি ফাইজান নামটি পছন্দ হয়ে থাকে তবে নামটি আপনার সন্তানের জন্য রাখতেই পারেন। তাই ফাইজান দিয়ে ঠিক কোন কোন নাম রাখা যায় তার একটি সাজেশন / তালিকা নিচে দেয়া হলো৷ আশা করি ভালো লাগবে।

  • ফাইজান ইসলাম
  • ফাইজান সাফি
  • আব্দুল ফাইজান ,
  • খালিদ হাসান ফাইজান ,
  • ফাইজান রহমান ,
  • মহামুদ ফাইজান ,
  • মুস্তফা ফাইজান ,
  • ফাইজান ফাইজান,
  • সাদিদ হাসান ফাইজান ,
  • ফাইজান ইসলাম,
  • আরিয়ান মাহমুদ ফাইজান ,
  • ফাইজান হাসান,
  • আল ফাইজান ,
  • ফাইজান আব্দুল করিম,
  • আব্দুল্লাহ ফাইজান ,
  • রিয়াজুল ইসলাম ফাইজান ,
  • সাইফুল ইসলাম ফাইজান ,
  • রাফসান আহমেদ ফাইজান ,
  • শামীম উদ্দিন ফাইজান ,
  • ইমরান হোসেন ফাইজান ।

সুন্দর নাম রাখার ব্যাপারে হাদিস

সন্তান জন্ম হবার পর তার একটি সুন্দর ইসলামীক অর্থপূর্ণ নাম রাখা পিতামাতার কর্তব্য। এই কর্তব্যে কোন পিতামাতা যদি অবহেলা করেন তবে তার জন্য আল্লাহর কাছে জবাবদিহিতা করতে হবে। রাসুলুল্লাহ সাঃ বলেছেন, কিয়ামতের দিন তোমাদের নিজ নাম ও পিতার নামে ডাকা হবে। সুতরাং তোমরা সুন্দর নাম রাখো। (আবু দাউদ)

বিখ্যাত ব্যক্তি ও বিষয়

ফাইজান নামের প্রচুর প্রতিভাবান মানুষ রয়েছে। তবে আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাত, ফাইজান নামে তেমন কোনো ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া যায়নি। হতেও পারে আপনার ফাইজান ই হবে এই নামের সবচেয়ে প্রতিভাবান মানুষ!

ফাইজান নামটি বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়াসহ মুসলিম বিশ্বের পছন্দের নাম গুলোর মধ্যে শীর্ষে থাকলেও বর্তমানে সৌদি আরব ও কাতারে নামটির বিশেষ জনপ্রিয়তা লক্ষণীয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 12 =