শব্দের তীব্রতার একক হলো ডেসিবেল (dB)

শব্দের তীব্রতা হলো বাতাসে শব্দ তরঙ্গের শক্তি প্রবাহের পরিমাণ। এটি প্রতি একক সময়ে প্রতি একক ক্ষেত্রফলের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত শক্তির পরিমাণ হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়।

ডেসিবেল হলো লগারিদমিক একক। এটি একটি তুলনামূলক একক, যা একটি নির্দিষ্ট তথ্য (reference level) এর সাথে শব্দের তীব্রতার অনুপাতকে নির্দেশ করে।

শব্দের তীব্রতার ডেসিবেল স্কেলের সূত্র:

dB = 10 * log10(I/I0)

এখানে:

  • dB = শব্দের তীব্রতার ডেসিবেল স্কেলে মান
  • I = শব্দের তীব্রতা (W/m^2)
  • I0 = তথ্য (reference level) (10^-12 W/m^2)

তথ্য (reference level) হলো মানুষের শ্রবণসীমার শব্দের তীব্রতা।

শব্দের তীব্রতার কিছু উদাহরণ:

  • 0 dB: শ্রবণসীমা
  • 20 dB: পাতলা পাতায় পাতার শব্দ
  • 40 dB: ঘরের ভেতরের শব্দ
  • 60 dB: স্বাভাবিক কথোপকথনের শব্দ
  • 80 dB: ব্যস্ত রাস্তার শব্দ
  • 100 dB: ট্রেনের শব্দ
  • 120 dB: বিমানের ইঞ্জিনের শব্দ

শব্দের তীব্রতা মানুষের শ্রবণশক্তির উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। 85 dB এর বেশি শব্দের তীব্রতা দীর্ঘ সময় ধরে শোনা মানুষের শ্রবণশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।