রিভেঞ্জ অব ন্যাচার বা প্রকৃতির প্রতিশোধ বলতে বোঝায় প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের লঙ্ঘনের ফলে প্রকৃতির পক্ষ থেকে যে ক্ষতি বা প্রতিক্রিয়া আসে। প্রকৃতি একটি ভারসাম্যপূর্ণ ব্যবস্থা, এবং মানুষের ক্রিয়াকলাপের ফলে এই ভারসাম্য নষ্ট হলে প্রকৃতি নিজেকে রক্ষা করার জন্য বিভিন্ন উপায়ে প্রতিক্রিয়া জানায়। এই প্রতিক্রিয়াগুলো কখনো কখনো মানুষের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

প্রকৃতির প্রতিশোধের কিছু উদাহরণ হল:

  • বনের গাছপালা কেটে ফেলার ফলে মাটি ক্ষয় হয় এবং বন্যা, খরা, ভূমিধস ইত্যাদি প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকি বাড়ে।
  • পরিবেশ দূষণের ফলে বায়ু, জল ও মাটি দূষিত হয়, এবং বিভিন্ন রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পায়।
  • বন্যপ্রাণী হত্যার ফলে বন্যপ্রাণীর সংখ্যা হ্রাস পায়, এবং পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়।

মানুষ যদি প্রকৃতির সাথে ভারসাম্য বজায় রাখতে না পারে, তাহলে প্রকৃতির প্রতিশোধের মুখোমুখি হতে হবে। তাই প্রকৃতির প্রতি আমাদের সচেতন ও যত্নশীল হওয়া উচিত।

বাংলায় রিভেঞ্জ অব ন্যাচার বা প্রকৃতির প্রতিশোধের আরেকটি পরিচিত বাক্য হল “প্রকৃতি কখনো ঋণ শোধ করে না, কিন্তু প্রতিশোধ নিতে ভুল করে না।” এই বাক্যটি প্রকৃতির নিয়ম সম্পর্কে আমাদের মনে করিয়ে দেয়।