মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ এই কনটেন্টে পাওয়া যাবে ।বাংলা আধুনিক নামের তালিকা মেয়েদের ইসলামিক নাম যখন চাওয়া হয় তখন অনেকেই নানাবিধ পরিকল্পনা করে নাম রাখার চেষ্টা করে। গ্রামবাংলা মানুষের মাঝে দেখা যায় যে নানা-নানী দাদা-দাদী এবং তাদের আত্মীয়-স্বজনের কাছ থেকে তুলে রাখা নাম দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

যেমন ধরুন প্রতিটি মেয়েদের নাম রাখা হতো সকিনা জরিনা ইত্যাদি কিন্তু বর্তমান পেক্ষাপট এই নামগুলো এখন আর খাপ খায় না। আধুনিক নাম সকলে খোঁজ করে থাকেন। যে সকল মুসলিম পিতা-মাতা তাদের সন্তানের একটি সুন্দর নাম রাখার জন্য খোঁজ করছেন তারা এই ওয়েবসাইটে থেকে অতি সহজেই বিভিন্ন ইসলামিক নামে ধারণা পেয়ে যাবেন

সুতরাং মেয়েরা যেহেতু আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে নিয়ামত ঠিক তেমনি একটি সঠিক এবং অর্থপূর্ণ নাম রাখা নিয়ামতের আর একটি মাধ্যম। সুতরাং আপনার সন্তানের আধুনিক নাম রাখার জন্য নিচের অর্থপূর্ণ নামগুলো সহায়ক নয় কি?

মুসলিম মেয়েদের আধুনিক ইসলামিক নাম অর্থসহ

আদিভা: মুসলিম ধর্মে মেয়েদের কাছে আদিভা নামটি খুবই পছন্দের। আদিভা নামের অর্থ হল একজন মহিলার স্পর্শে কোমল এবং মনোরম অনুভূতি।

আমিরা: আপনিও এই নামটি বেছে নিতে পারেন। আমিরা নামের অর্থ “সর্বোত্তম, সর্বোচ্চ এবং উচ্চতর”। যিনি শ্রদ্ধেয় তাকে আমিরাও বলা হয়।

আনিশা: আপনি যদি ‘ক’ অক্ষর দিয়ে আপনার মেয়ের নাম রাখতে চান তবে আপনি আনিশা নামটি বেছে নিতে পারেন। আনিশা নামটাও বেশ আধুনিক। আনিশা নামের অর্থ “রহস্যময় বা প্রিয় এবং ভালো বন্ধু”।

দারিয়া: আপনি যদি একটি মুসলিম নাম খুঁজছেন, তাহলে আপনার অনুসন্ধানটি দারিয়া নামটিতে এসে শেষ হতে পারে। দারিয়া নামের অর্থ হল “একটি নদী যা তার প্রবাহ ছেড়ে যায় না”।

ফারাহ: মেয়েদের কাছে এই নামটা খুবই জনপ্রিয়। বর্তমানে মানুষ আধুনিক ও অনন্য নাম পছন্দ করলেও নব্বইয়ের দশকে ফারাহ নামটি খুব পছন্দের ছিল। ফারাহ নামের অর্থ “সুখের বাহক”।

নাদিমা: আপনি যদি ‘না’ অক্ষর দিয়ে নাম রাখতে চান তবে আপনি নাদিমা নামটি বেছে নিতে পারেন। নাদিমা নামের অর্থ বন্ধু, বন্ধু, বন্ধু এবং সঙ্গী।

নাজিয়া: নাজিয়া নামটি মুসলিম মেয়েদের কাছে খুবই প্রচলিত। নাজিয়া নামের অর্থ “পরিবারের গর্ব”।

সারা: বাবা-মায়ের কাছে তাদের মেয়ে রাজকন্যার চেয়ে কম নয়। আপনি যদি আপনার মেয়েকে রাজকুমারীর মতো মানুষ করতে চান তবে আপনি তার সমস্ত নাম দিতে পারেন। সারা নামের অর্থ রাজকুমারী এবং পরী।

সোফিয়া: সোফিয়া নামটি মেয়েদের কাছেও বেশ জনপ্রিয়। সোফিয়া নামের অর্থ “জ্ঞানী এবং বিচক্ষণ মহিলা”।

তাহিরা: ‘ট’ অক্ষর দিয়ে শুরু হওয়া আধুনিক নামের তালিকায় এই নামটি রাখতে পারেন। তাহিরা নামের অর্থ “পবিত্র নারী”।

ফরিদা: যে কন্যা তার পিতামাতার কাছে অত্যন্ত মূল্যবান তাকে ফরিদা বলা হয়। আপনি আপনার মেয়ের জন্য ফরিদা নামটি বেছে নিতে পারেন।

ফাতেমা: এটি একটি আধুনিক এবং সাধারণ নাম। আপনি যদি ‘এফ’ অক্ষর সহ একটি নাম খুঁজছেন, তাহলে ফাতিমা নামটি আপনার জন্য উপযুক্ত হতে পারে।

জুঁই: আপনি এই নামটি হিন্দু এবং মুসলিম উভয় নামের তালিকায় রাখতে পারেন। জুঁই নামের অর্থ “জুঁই ফুলের সুবাস”।

মেহের: এই নামটাও খুব কিউট। মেহের নামের অর্থ “দয়াময় এবং দয়ালু”। বলিউড অভিনেত্রী নেহা ধুপিয়ার মেয়ের নাম মেহের।

জন: এই মুসলিম নামটি ছেলেদের জন্য। জোহান নামের অর্থ “ঈশ্বরের দান এবং আল্লাহর দান”। আপনি যদি আপনার ছেলেকে আল্লাহর দান বলে মনে করেন, তাহলে আপনি তার নাম রাখতে পারেন জন।

আরহাম: এই নামটাও খুব কিউট। আরহাম শব্দের অর্থ দয়াময়, দয়ালু, করুণাময় হৃদয় এবং উদার এবং বড় হৃদয়।

আলিশা: এটি একটি খুব সুন্দর এবং আধুনিক নাম। আলিশা নামের অর্থ হল যিনি আল্লাহকে সমর্থন করেন, সৎ, সত্য, বলিষ্ঠ এবং সঠিক। আপনি আপনার মেয়ের নাম আলিশা রাখতে পারেন।

সামাইরা: আপনি এই নামটি হিন্দু এবং মুসলিম উভয় নামের তালিকায় রাখতে পারেন। সামাইরা একটি আধুনিক নাম এবং আপনি এই নামটি আপনার মেয়েকে দিতে পারেন। সামাইরা নামের অর্থ “বিস্ময়কর এবং মোহনীয়”।

আলায়না: এই নামটি দেখে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন এই নামটি খুবই অনন্য এবং আধুনিক। Alayna নামের অর্থ “পাথর এবং রাজকুমারী”। আপনি যদি আপনার মেয়েকে রাজকুমারীর মতো লালন-পালন করতে চান তবে আপনি তার নাম রাখতে পারেন আলায়না।

সুমাইয়া: মেয়েদের এই মুসলিম নামটিও আলাদা এবং সুন্দর। আপনি আপনার মেয়ের এই আধুনিক নাম দিতে পারেন। সুমাইয়া নামের অর্থ “বিশুদ্ধ, উচ্চ, সর্বোত্তম এবং উচ্চ”।

উমাইজাঃ এই নামটি U অক্ষর দিয়ে শুরু হয়। উমাইজা নামের অর্থ “আরাধ্য, উজ্জ্বল, সুন্দর এবং কোমল হৃদয়”। আপনি আপনার মেয়ের নাম উমাইজা রাখতে পারেন।

জিশান: এই নামটা ছেলেদের জন্য। জিশান শব্দের অর্থ আড়ম্বরপূর্ণ, উচ্চ মর্যাদা, জাঁকজমকপূর্ণ এবং বিলাসবহুল। আপনার ঘরে ছেলের জন্ম হলে তার নাম রাখতে পারেন জিশান।

রেশমা: এই নামটা নিশ্চয়ই অনেক শুনেছেন। এই মেয়েটির নাম খুব বিখ্যাত। রেশমা নামের অর্থ নরম, কোমল এবং মূল্যবান।

সমীর: মুসলিম ও হিন্দু উভয় ধর্মেই এই নামটি পছন্দের। সমীর নামের অর্থ “বায়ু, বিনোদনকারী এবং সঙ্গী”।

সাহিল: আপনি আপনার ছেলের নামও রাখতে পারেন সাহিল। সাহিল নামের অর্থ নদীর তীর বা তীর এবং পথপ্রদর্শক।

ইনায়া: খুব কিউট একটা মেয়ের নাম। ইনায়া নামের অর্থ “আল্লাহর দান”। বলিউড অভিনেত্রী সোহা আলী খানের মেয়ের নামও ইনায়া।

জায়েদ: এই মুসলিম নামটি ছেলেদের জন্য। জায়েদ নামের অর্থ প্রাচুর্য, বৃদ্ধি, অতিরিক্ত, সংযোজন, অতিরিক্ত, উদ্বৃত্ত এবং বৃদ্ধি।

আরশিয়া: এই নামের অর্থ হল সুন্দর, ফর্সা, আল্লাহর স্থান, যিনি আকাশ ও স্বর্গে থাকেন।

জিয়ান: এই নামের অর্থ কমনীয়তা, সৌন্দর্য, সজ্জা, অলঙ্কার এবং উদারতা। যদি আপনার ছেলের নাম J অক্ষর থেকে উদ্ভূত হয় তবে আপনি তার নাম গিয়ান রাখতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − seven =