প্রিভি কাউন্সিল হল যুক্তরাজ্যের রাজতন্ত্রের একটি ঐতিহাসিক ও আনুষ্ঠানিক প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে, রাণী এটির নেতৃত্বে রয়েছেন এবং এতে যুক্তরাজ্য ও কমনওয়েলথ রাষ্ট্রের প্রিভি কাউন্সিলর নামক সদস্যদের একটি দল অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ইতিহাস:

  • ১২শ শতাব্দীতে প্রতিষ্ঠিত।
  • মূলত রাজাকে পরামর্শ দেওয়ার জন্য গঠিত।
  • সময়ের সাথে সাথে, আইন প্রণয়ন, বিচার বিভাগ ও গির্জার নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

বর্তমান ভূমিকা:

  • আনুষ্ঠানিকভাবে রাণীকে পরামর্শ দেয়।
  • অর্ডার ইন কাউন্সিল জারি করে, যা আইনি কার্যকারিতা সম্পন্ন নিয়ম।
  • যুক্তরাজ্যের সংবিধানের রক্ষাকর্তা হিসেবে কাজ করে।
  • কমনওয়েলথ রাষ্ট্রের সাথে সম্পর্কিত বিষয়গুলোতে রাণীকে সহায়তা করে।

প্রিভি কাউন্সিলর:

  • রাণী কর্তৃক নিযুক্ত।
  • সাধারণত জ্যেষ্ঠ রাজনীতিবিদ, বিচারক ও অন্যান্য সম্মানিত ব্যক্তি।
  • مدى الحياة পদ।
  • “দ্য রাইট অনারেবল” উপাধি ধারণ করে।

গুরুত্ব:

  • যুক্তরাজ্যের ঐতিহ্য ও শাসন ব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  • রাণীকে পরামর্শ ও সমর্থন প্রদান করে।
  • কমনওয়েলথ রাষ্ট্রের সাথে যুক্তরাজ্যের সম্পর্ক বজায় রাখতে সহায়তা করে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট:

  • বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর, প্রিভি কাউন্সিলের ভূমিকা অনেকাংশে হ্রাস পেয়েছে।
  • সুপ্রিম কোর্ট of Bangladesh যুক্তরাজ্যের প্রিভি কাউন্সিল থেকে আপিলের শেষ আদালত হিসেবে কাজ করে।
  • তবে, কিছু বিষয়ে, যেমন কমনওয়েলথ নাগরিকত্ব, প্রিভি কাউন্সিল এখনও ভূমিকা পালন করে।

উপসংহার:

প্রিভি কাউন্সিল যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এবং বর্তমানেও রাণী ও কমনওয়েলথের সাথে সম্পর্কিত বিষয়গুলোতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

Categorized in: