ম্যালেরিয়া হচ্ছে মশাবাহিত একটি সাধারণ ব্যাধি। পরজীবী প্লাসমোডিয়াম-এর কারণে এটি ছড়ায়। মশা এই রোগ বহন করে থাকে।

ম্যালেরিয়া হল একটি সংক্রামক রোগ যা অ্যানোফিলিস মশার কামড়ের মাধ্যমে ছড়ায়। এই মশাগুলি এডিস মশার থেকে ছোট এবং সাধারণত গাঢ় বাদামী বা কালো রঙের হয়। এগুলি সাধারণত সন্ধ্যা এবং রাতে কামড়ায়।

সারা বিশ্বে মানুষের মারণরোগের ক্ষেত্রে এটি অন্যতম প্রধান কারণ। মেয়ে মশা মানুষকে কামড়ালে এই পরজীবী মানুষের দেহে প্রবেশ করে এবং জ্বর, মাথাব্যাথা, বমির মত উপসর্গ দেখা যায়।

ম্যালেরিয়ার কারণ হল Plasmodium নামক এক ধরনের পরজীবী। এই পরজীবীগুলি মশার লার্ভার মধ্যে বিকাশ লাভ করে এবং মশা যখন মানুষের রক্ত পান করে তখন মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। পরজীবীগুলি তখন মানুষের লিভারে প্রবেশ করে এবং সেখানে বৃদ্ধি পায়।

কিছু দিন পরে, পরজীবীগুলি রক্ত প্রবাহে প্রবেশ করে এবং লোহিত রক্তকণিকাকে সংক্রমিত করে। সংক্রমিত লোহিত রক্তকণিকাগুলি তখন ফেটে যায় এবং পরজীবীগুলি মুক্ত হয়। এই পরজীবীগুলি আবার অন্যান্য লোহিত রক্তকণিকাকে সংক্রমিত করে।

ম্যালেরিয়ার লক্ষণগুলি সাধারণত সংক্রমণের কয়েক দিন পরে শুরু হয়। এই লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • জ্বর
  • ঠান্ডা এবং কাঁপুনি
  • মাথাব্যথা
  • পেশী ব্যথা
  • ক্লান্তি
  • বমি বমি ভাব বা বমি
  • অরুচি
  • ডায়রিয়া
  • শ্বাসকষ্ট
  • জ্বর এবং ঘামের আক্রমণ

ম্যালেরিয়া একটি গুরুতর রোগ হতে পারে, বিশেষ করে শিশু, বয়স্ক ব্যক্তি এবং গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে। ম্যালেরিয়ার জটিলতার মধ্যে রয়েছে:

  • যকৃতের ক্ষতি
  • কিডনির ক্ষতি
  • রক্তস্বল্পতা
  • শ্বাসকষ্ট
  • মস্তিষ্কের ক্ষতি
  • মৃত্যু

ম্যালেরিয়ার চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিমালারিয়াল ওষুধ ব্যবহার করা হয়। এই ওষুধগুলি পরজীবীগুলিকে মেরে ফেলে। ম্যালেরিয়ার জটিলতাগুলি প্রতিরোধ করার জন্যও চিকিৎসা প্রয়োজন হতে পারে।